কুরআন ও রোযা কিয়ামতের দিন সুপারিশ করবে

Spread the love

কুরআন ও রোযা কিয়ামতের দিন সুপারিশ করবে

কিয়ামতের  কঠিন মসিবতের দিন কোরআন ও রোযা আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের নিকট সুপারিশ করবে। যেদিন সমস্ত নবী ও রাসুলরা ইয়া নাফসি, ইয়া নাফসি করবে। কেবলমাত্র আমাদের নবী হযরত মুহাম্মদ (সঃ) ছাড়া বাকী সব নবী এবং সে দিন আপন রক্ত সম্বন্ধীয় লোক একে অপরের কাছ থেকে পালাতে থাকবে। আর আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের অনুমতি ছাড়া কেহ সুপারিষ করতে পারবে না। সে কঠিন ভয়ংকর দিনে কোরআন ও রোযা বান্দার জন্য সুপারিশ করবে। যেমন : হাদীস শরীফে এসেছে :

عَـنْ عَـبْـدِ اللهِ بْـنِ عُـمَـرَ (رض) قَـالَ قَـالَ الـنَّـبِـىُّ صلعم اَلـصِّـيَـامُ وَالْـقُـرْأنُ يَـشْـفَـعَـانِ لِـلْعَـبْدِ يَـوْمَ الْـقِـيَـامَـةِ يَـقُـوْلُ الـصِّـيَـامُ اَىْ رَبِّ مَـنَـعْـتُـهُ الـطَّـعَـامَ وَالـشَّـهْـوَةَ فَـشَـفِّـعْـنِـىْ فِـيْـهِ وَيَـقُـوْلُ الْـقُـرْأنُ مَـنَـعْـتُـهُ الـنَّـوْمَ بِـالـلَّـيْلِ فَـشَـفِّـعْـنِـىْ فِـيْـهِ قَالَ فَـيُـشَـفَّـعَانِ

হযরত আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রাঃ) হতে বর্ণিত, তিনি বলেন রাসূল (সাঃ) এরশাদ করেন : কিয়ামতের দিন রোযা ও কোরআন বান্দার জন্য সুপারিশ করবে। রোযা বলবে : হে আমার রব! আমি তাকে খাদ্য ও  যৌন চাহিদা থেকে বিরত রেখেছি। আমাকে তার ব্যাপারে সাপারিশ করার অনুমতি দিন। কোরআন বলবে, হে আমার বর! আমি তাকে রাত্রে ঘুম থেকে বিরত রেখেছি। আমাকে তার ব্যাপারে সুপারিশ করার অনুমতি দিন। বর্ণনাকারী বলেন, তাদের উভয়কে সুপারিশ  করার অনুমতি দেয়া হবে (মুসনাদে আহমদ)

অতএব উল্লেখীত হাদীস থেকে অনুধাবন করা যায় যে, কোরআনকে দুনিয়ার জীবনে পরিপূর্ণভাবে মেনে চললে কিয়ামতের দিন কোরআন আমাদের  পক্ষে সুপারিশ করবেন। এমনি রোযাকে সর্বাত্মকভাবে পালন করলে কিয়াকতের দিন রোযাও আমাদের পক্ষে সুপারিশ করবে। ‍উভয়ের সাপারিশের দ্বারা পরকালে শান্তিতে থাকা যাবে। আর কোরআন ও রোযা যদি আমাদের বিপক্ষে সুপারিশ করেন তখন আমাদের জাহান্নম  ছাড়া বিকল্প আর কোন পথ নেই। এজন্য আমাদেরকে বেশি বেশি করে কোরআন তেলাওয়াত করতে হবে এবং সে অনুযায়ী চলতে হবে। আর মাহে রমজানের রোযাগওলো সঠিকভাবে পালন করতে হবে।


Spread the love

Leave a Comment